ঢাকা চিড়িয়াখানা কিভাবে যাবেন এবং অন্যান্য তথ্য (Visit National Zoo in Dhaka)

Contents

ঢাকা চিড়িয়াখানা বা বাংলাদেশ জাতীয় চিড়িয়াখানাঃ

 

ঢাকায় একটি আধুনিক চিড়িয়াখানা স্থাপনের ব্যাপারে প্রথম সরকারি সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় ১৯৫০ খ্রিস্টাব্দে। তৎকালীন কৃষি, সহযোগিতা ও ত্রাণ বিভাগের এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে ঢাকার উপকণ্ঠে একটি চিড়িয়াখানা ও উদ্ভিদ উদ্যান স্থাপনের ঘোষণা দেওয়া হয়। সে বছর ২৬ ডিসেম্বর প্রস্তাবনাটি চুড়ান্তভাবে ঘোষিত হয়। এরপর চিড়িয়াখানা স্থাপনের কোনপ্রকার উদ্যোগ ছাড়াই এক দশক পার হয়ে যায়। ১৯৬১ সালের ১১ মার্চ খাদ্য ও কৃষি বিভাগের এক প্রজ্ঞাপনের বরাতে এক উপদেষ্টা পরিষদের নাম ঘোষণা করা হয়।

ঢাকা চিড়িয়াখানা আয়তন প্রায় ৭৫ হেক্টর। চিড়িয়াখানার চত্বরে ১৩ হেক্টরের দুটি দৃষ্টিনন্দন প্রশস্ত লেক আছে।

চিড়িয়াখানা তথ্যকেন্দ্র হতে প্রাপ্ত তথ্য হতে জানা যায়, বর্তমানে ঢাকা চিড়িয়াখানায় ১৯১ প্রজাতির ২১৫০টি প্রাণী রয়েছে। তবে ঢাকা চিড়িয়াখানায় ১৩৮ প্রজাতির ২ হাজার ৬২২টি প্রাণী ও পাখি রয়েছে ।

অবস্থানঃ

ঢাকা চিড়িয়াখানা বা জাতীয় চিড়িয়াখানা রাজধানী ঢাকার মিরপুরে অবস্থিত।  এটি বাংলাদেশ সরকারের মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় এর অধীনস্থ একটি প্রতিষ্ঠান।

কিভাবে যাবেনঃ

ঢাকার যেকোন স্থান থেকে লোকাল বাস অথবা সিএনজি করে একদম চিড়িয়াখানা গেইটের কাছে যেতে পারবেন । ব্যাক্তিগত গাড়ি ও নিয়ে যাওয়া যায় ।
তবে অনেক সময় ডিরেক্ট বাস না পেলে মিরপুর ১ এর যেকোন বাসে উঠে সেখান থেকে সনি সিনেমা হলের কাছ থেকে রিক্সা করে ও যেতে পারবেন ।

কার পারকিংঃ
বাস মিনিবাস, ট্রাক  ইত্যাদি পরিবহনের জন্যে ৪০ টাকা , মাইক্রোবাস , প্রাইভেট কার এসবের জন্য ২০ টাকা তবে বাইক , সিএনজি এর জন্য মাত্র ১০ টা

খাওয়ার ব্যাবস্থাঃ
চিড়িয়াখানার গেইটের আসে পাশে অনেক খাবার এর দোকান রয়েছে, তবে খাওয়ার আগে অবশ্যই দাম জিজ্ঞাস করে খেতে হবে , সবচেয়ে ভাল হয় যদি খাবার অন্য কোথাও থেকে খেয়ে যাওয়া হয়।

পিকনিক স্পট ভাড়াঃ
নিঝুম ও উৎসব নামক দুটি পিকনিক স্পট রয়েছে , নিঝুম এর ভাড়া ৬০০০ টাকা এবং উৎসব এর ভাড়া ১০০০০ টাকা ।

প্রবেশ বা টিকেট মুল্যঃ

মেইন গেইটে প্রবেশ করতে ৫০ টাকার টিকেট কাটা লাগবে তারপর সেখান থেকে যদি জো মিউজিয়ামের প্রবেশ করতে চান তাহলে আরো ১০ টাকার একটি টিকেট কাটতে হবে , তাছাড়া ছাত্র ছাত্রীরা তাদের নিজস্ব প্রতিষ্ঠানের আইডি কার্ড দেখিয়ে অর্ধেক মুল্যে টিকেট কাটতে পারবেন ।

ঢাকা চিড়িয়াখানা সাপ্তাহিক বন্ধের দিনঃ

রবিবার সাপ্তহিক বন্ধ তবে রবিবার যদি কোন সরকারী ছুটির দিন হয়ে থাকে তাহলে সেদিন খোলা থাকে। তাছাড়া সপ্তাহের অন্যান্য ৬ দিন সকাল ৯ টা থেকে বিকাল ৬ টা পর্যন্ত খোলা থাকে ।

চিড়িয়াখানার প্রধান আকর্ষণঃ

রয়েল বেঙ্গল টাইগার, এশীয় সিংহ, লোনা পানির কুমির, ইমপালা, এমু, টাপির, এশীয় কালো ভাল্লুক

 

আরও পড়ুনঃ

মিলিটারি মিউজিয়াম

সাফারি পার্ক

 

 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *