নরওয়েতে কিভাবে জব খুঁজবেন? (How To find Jobs in Norway -2022)

নরওয়ে পৃথিবীর সবচেয়ে ব্যয়বহুল দেশগুলোর মধ্যে একটা! তাই হায়ার স্টাডি করতে আসা শিক্ষার্থীদের পড়ার পাশাপাশি জবের কোন বিকল্প নেই। আজকের আমাদের আলোচনা হচ্ছে নরওয়েতে কিভাবে জব খুঁজবেন !

 

দেশ থেকে সম্পূর্ন ভিন্ন পরিবেশের একটা দেশে মুভ ইন করার পর—নরওয়েজিয়ান রুল, ইউডিয়াই এর প্যারা, রেসিডেন্ট কার্ড, পুলিশ ভেরিফিকেশান, নতুন পড়াশুনা এবং জব ম্যানেজ করার চক্করে পড়ে কেউ কেউ রেজাল্ট খারাপ করে,কেউ ডিপ্রেশানে পড়ে, কেউবা সিনিয়রদের/গ্রুপ এডমিনদের ধরে গালিগালাজ করে!

 

আজকের এই পোষ্টে আমার গত একবছরের অভিজ্ঞতার আলোকে জব খোঁজার কিছু টিপস-ট্রিক্সস দেওয়ার চেষ্টা করবো।

 

Contents

১) সিভি এন্ড কভার লেটারঃ


এটা হচ্ছে জব পাওয়ার মেইন অস্ত্র! যার এই অস্ত্র যত বেশী ভালো, তার সম্ভাবনা ততবেশী! মনেকরেন আপনি ক্লিনিং কোম্পানীতে জবের জন্য এপ্লাই করছেন, আর সেই সিভিতে আপনার কয়টা পাবলিকেশন, কয়টা সেমিনারে এটেন্ড করছেন, এইসব ইনফো সহ সিভিদেন তাহলে কাজ হবে না!

নিচের এই লিংকে অসলো ইউনিভার্সির ক্যারিয়ার সার্ভিস থেকে কিছু সিভি ও কবার লেটারের স্যাম্পল দিয়ে রাখছে। যাদের বুঝতে অসুবিধা হচ্ছে কিভাবে সিভি ও কভার লেটার লিখবেন।তারা এই লিংকে গিয়ে আইডিয়া নিয়ে সিভি কবার লেটার তৈরী করে নিন।

 

*** কভার লেটার লিখার সময় অনলাইন থেকে কপি পেস্ট কভার লেটার না দিয়ে, যে জবে এপ্লাই করতেছেন সেই জবে কি কি রিকোয়ারমেন্ট চেয়েছে, সেগুলা আপনার কতখানি রয়েছে এবং এই জবের জন্য আপনি কতখানি যোগ্যে সেগুলা লেখুন, বিশ্বাস করেন এটা অনেক কাজে দিবে!

 

নরওয়েতে কিভাবে জব খুঁজবেন?

২) রেষ্টুরেন্ট জবঃ


এখানে আসা স্টুডেন্টদের মধ্যে সবচেয়ে বেশী জব করে রেষ্টুরেন্টে! রেষ্টুরেন্ট জব পাওয়ার সহী তরিকা হচ্ছে, সিভি প্রিন্ট করে ডোর টু ডোর নক দেওয়া।

পাশাপাশি অনলাইনে এপ্লাই করে রাখতে পারেন। .

 

বার্গার কিং,ম্যাকডোনাল্ড এর মতো চেইন রেষ্টুরেন্ট গুলোতে জবের জন্য ওদের ওয়েবসাইটে গিয়ে আপনার সিভি তৈরী করে রাখবেন এবং ওদের সাইটে চোখ রাখবেন,ওরা আপডেট করে কখন কোন ব্রাঞ্চে লোক লাগবে, সেটা দেখে এপ্লাই করবেন।
এছাড়াও আপনি যে শহরে রয়েছে সেই শহরে বড়বড় হোটলগুলোতেও ক্লিনিং, কিচেন হেলপার এইসব পজিশানে এপ্লাই করতে পারেন।

সহ অনেকগুলো জব খোঁজার সাইট রয়েছে। এগুলাতে রেগুলার চোখ রাখবেন এবং পছন্দমত জবে এপ্লাই করবেন!

 

৩) জব সাইটঃ


www.finn.nowww.indeed.nowww.nav.no

 

এপ্লাই করার সময় কি রিকোয়ারমেন্ট চেয়েছে সেগুলা দেখে-শুনে , আপনি এই পজিশানের জন্য কেন যোগ্যে সেটা সুন্দর করে কভার লেটারে লিখে দিবেন।

 

নরওয়েতে কিভাবে জব খুঁজবেন?

 

৪) জব এজেন্সীঃ


নরওয়ে অনেকগুলো জব এজেন্সী রয়েছে, এরা মূলত বড়-বড় কোম্পানীগুলোর এপ্লয়ী সাপ্লাইয়ার হিসেবে কাজ করে। এই এজেন্সীগুলোর ওয়েবসাইটে নিজের প্রোফাইল ওপেন করে রাখবেন এবং আপনার পছন্দের ক্যাটাগরী ও আপনার যোগ্যতা অনুযায়ী আপনার জন্য জব খুঁজবে এজেন্সী থেকে ।
 ফুডরা রয়েছে। স্টুডেন্টদের জন্য এটা খুব ভালো জব। ব্যাংক একাউন্ট হবার পরে এখানে প্রোফাইল তৈরী করবেন এবং একটা ছোট অনলাইন এসেসমেন্ট করবে সেটা পাস করতে হবে এবং নিজের বাইক থাকা লাগবে।

নরওয়েতে কিভাবে জব খুঁজবেন?


৫) ফুড ডেলিভারীঃ


অনেক গুলো বড় শহরে (www.foodora.no/

 

৬) ক্লিনিং জবঃ


আপনি যে শহরে বসবাস করতেছেন। সে শহরে কি কি ক্লিনিং কোম্পানী রয়েছে সেগুলা গুগল করে বের করুন এবং একে একে সবগুলাতে এপ্লাই করুন অনলাইনে। ওদের ফোন নাম্বার নিয়ে সরাসরি কল দিয়েও জব চাইতে পারেন। ক্লিনিং জব গুলোর পেমেন্ট ভালো হয়ে থাকে, যেহেতু স্টুডেন্টদের ৮০ ঘন্টা কাজ করার একটা লিমিটেশান রয়েছে, সেহেতু ক্লিনিং জব একটা বেটার অপশান।

৭) পারমানেন্ট জবঃ


নরওয়েতে পিআর পাওয়ার জন্য মাষ্টার্সের পরে এক বছর জব সার্চিং ভিসা দেয়, এই এক বছরের মধ্যে যদি সাবজেক্ট রিলেটেড জব খুঁজে পান অথবা পিএইচডি খুঁজে পান তাহলে ভিসা স্ট্যাটাস চেঞ্জ করে এখানে পিআর হওয়া যায়।
এই সাইটের মধ্যে আপনি পারমানেন্ট জব (পিএইচডি অলসো) খুঁজে পাবেন । আগে থেকেই এই সাইটে প্রোফাইল করে জব খুঁজতে থাকতে পারেন! কপাল ভালো হলে পারমানেন্ট জব ম্যানেজ করতে পারবেন। ইনশাআল্লাহ।
www.jobbnorge.no

৮) আইটি জবঃ


বাংলাদেশ থেকে নিয়ে আসা একখানা কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ার সার্টিফিকেট আইটি জবের জন্য যথেষ্ট না। এখানে সত্যিকারে আপনি কতটুকু স্কিল সেটা দেখতে চায়। আপনি পোগ্রামিং এ কতটুকু দক্ষ, ডিজাইনার হলে কতটুকু প্রফেশনাল সেটা দেখতে চায়। তাই কম্পিউটার সায়েন্সের ভাই-আপুরা নিজেদের পোর্টফোলিও ওয়েবসাইট করে রাখতে পারেন এবং আপনাদের দক্ষতা অনুযায়ী জব খুঁজে পাইলে এপ্লাই করতে পারেন। শুরুতে পার্ট-টাইম জব পাইলেও, যদি আপনি দক্ষ হন তাহলে পরবর্তীতে পারমানেন্ট জব হয়ে যেতে পারে।

এই সাইটে আইটি জব খুঁজে দেখতে পারেন।

http://www.teknojobb.no/

 

৯) তিতা কথাঃ


নরওয়েতে আপনার জব আপনাকেই খুঁজে নিতে হবে। আপনি যদি আশা করে বসে থাকেন অমুক ভাই এর সাথে আমার ভালো সম্পর্ক, তমুক ভাইয়ের সাথে পাশাপাশি একই শহরে থাকি, এডমিন আমার সব ম্যাসেজের রিপ্লাই দেয়, তাই উনারা আমার জব ম্যানেজ করে দিবেন! তাহলে আপনি বোকার স্বর্গে বসবাস করতেছেন!
এখানে কেউ কাউকে জব দেওয়ার ঠিকাদারী করতে আসে নাই, সবাই নিজ নিজ জীবন নিয়ে মহাব্যাস্ত। এই ব্যাস্ত জীবনের মধ্যে যদি কেউ আপনাকে জব পাইতে হেল্প করে সেটা হচ্ছে বোনাস। আপনি মোটেই আশা করবেন না, কেউ আপনার জব ম্যানেজ করে দিবেন!
আপনি জন্মাইছেন একা, মরবেনও একা! কিন্তু তারআগে নরওয়েতে নিজের থাকা-খাওয়ার জন্য একটা জব ম্যানেজ করবেন, সেটাও কিন্তু একাই করতে হবে!

অনেক সিনয়রের জব দিয়ে বাঁশ খাবার ঘটনাও জানি। এই ধরেন আপনি কাউকে জব পেতে হেল্প করলেন,সে রেগুলার কাজে না গিয়ে বাসায় ঘুমাবে এবং এটার জন্য জব হারিয়ে আবার আপনাকেই গালিগালাজ করবে!

 

১০) এক্সট্রা তথ্যঃ


*** ডি নাম্বার হওয়া ছাড়া জব হবে না। এটা একটা ভূল তথ্য। নরওয়েতে এসেই এপ্লাই শুরু করবেন। ডি-নাম্বার ও ব্যাংক একাউন্ট হতে হতে দুই মাসের মত সময় লাগে,অনেকের ৪/৫ সময় লাগে৷ এই সময় বসে না থেকে জবে এপ্লাই করেন। যদি জব হয়ে যায়, আপনার এমপ্লয়ারকে বুঝিয়ে বলুন আপনার কিছু দিন সময় লাগবে ডি নাম্বার ও ব্যাংক একাউন্ট হতে। এগুলা হলেই আপনি সেলারী নিবেন,আপনি এগুলা হবার আগেই কাজ করতে চান। আমি আমার এমপ্লয়ারকে কনভিন্স করতে পারছি এবং ডি-নাম্বার ও ব্যাংক একাউন্ট ছাড়াই কাজ শুরু করেছিলাম।
**** গত একবছর নরওয়েতে থাকার অভিজ্ঞতা নিয়ে এই তথ্যগুলো লিখলাম। সিনিয়রদের কোন ইনপুট থাকলে কমেন্ট করুন প্লিজ, পরে পোষ্টে এড করে দিবো!

নরওয়েতে কিভাবে জব খুঁজবেন?

উপরে যে আইডিয়া গুলো দেয়া হয়েছে তাছাড়া ও ভিন্ন ভিন্ন সেক্টরে জব খুজে নিতে পারবেন যদি আপনার কমিউনিকেশন স্কিল ভাল থাকে , মনে রাখবেন বিশ্বের যেকোন জায়গায় ই ভাল জব ম্যানেজ করা যায় যদি আপনার স্কিল থাকে । নরওয়ে তে বিশ্ববিদ্যালয় এবং কোর্স খুজে পেতে Studinnorway ভিজিট করুন .

 

Read Why You Must Have a website for your business !!

নরওয়ে তে কি পড়াশোনা ফ্রী ?

হ্যা নরওয়ে তে পড়াশুনা একদম ফ্রী তবে বাংলাদেশে থেকে কেবল মাস্টার্স করার জন্যে যাওয়া যায় ,ব্যাচেলর এর ভিসা এপ্রুভ করে না ।

নরওয়ে তে কি পড়াশোনা শেষে রেসিডেন্স পারমিট পাওয়া যায়?

নরওয়ে তে পড়াশোনা শেষে আপনাকে এক বছর এর জন্য কাজ খুজার ভিসা দিবে , পারমানেন্ট কাজ জব পেয়ে গেলে পি আর পেয়ে যাবেন !

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *